Monday, July 27, 2015

ঊটপাখির ডায়রি

এক

তরমুজ প্রপঞ্চযথা পাহাড়িয়া রানওয়ে
মাড়িয়ে বরঞ্চকথা বহুভূজা মনোপলি
কলিকথা কড়াভাজা পুনশ্চ বাড়িয়ে
বেড়ে চলে বাড়িময় ধূপধুনো জ্বালিয়ে

ধামে জমে চুলবুলি থামে বুড়ো বুলবুলি
ডানে খসে সীলগালা বামে খোলে ঘুলঘুলি
রাসলীলা এঁটে থাকে মুচমুচে ঝুনো খুলি
হেসেখেলে টেঁসে যায় রসেবশে বুড়োভাম

এইমতো পরিণাম টোনাটুনি রসধাম
জিগজ্যাগ লুটুপুটু পোনেবাম সোয়াবাম ।।







Friday, July 13, 2012

মন্বন্তর

ঘাম ঝরতে তারও পরে
খানিক দেরি-
মাতনফেরি পার করছে
ধার ধারছে খাস্তা ছেড়ি
চুক্তিমতন মুক্তিগাঁথা
সার করছে ছিদ্রকাঁথা
ফোঁড়াইমার্গ ফুটোস্কোপে
মাতালভাষ্য ভদ্রমাথা
মাছের চোখে মসলাবিহীন
স্বস্তিবোধক খিস্তি মরছে
ঝুমবাদলে ধুম আকালে



Sunday, February 12, 2012

জেনেসিস ৮১-৮৩



৮১.

পৃষ্ঠাগুলি পল্টি দিতে চেতনের মা'কে ঘোড়াচোদা করে ধরি ধরি মনে একদিন বেলে-দোঁআশে পুঁতে রাখে সুবিধামতো মারার ভরসায়  থুত্থুড়ে ঝাঁঝড়ি-ধূপাঞ্জলি। প্রশমনপারাপারপ্রকল্প বরাবর আড়াআড়ি-রাঢ়গাঁথা সাপোজিটারি গুঁজে রাখে গুড়গুড়িসম্ভব উত্তরমধ্যাহ্নকল্পদ্রুম। এইসব চুলবুলি, সাথ আর জবাবি মুজরোতে মুচমুচে খাজলিগুলি আজলা আজলা গিলতে চেয়েছিল ঢিল দিতে দিতে সহাস‌্য খসে পড়া রবাহুত রৌরব দিনলিপি, ছিপিভর্তি রাষ্ট্রায়াত্ব বস্তাদের প্রেতগাঁথা যেখানে সযথা যতনে ঝুলে থাকে পাললিক ভাগাড়ে; গর্দানে-ঘাড়ে খাচ্চর চেয়ে থাকে সঘটন রাঙাকাল বুনিবৎ বিষ্ময়ে।


৮২.

এই কথাগুলি ঐ কথাগুলির ছোটমাসী-ন'দিদি-শ্যালিকাদের কাউকেই ভালো না বেসে মাইপাছা মুখস্ত করে চুপচাপ ঝরে যাবার কথা ছিল কথামালার খেলামকুচি'র শুটিং শুরুর আগে আগে লালবাতি মাঝরাতে। স্বদেশী পেঁয়াজসকাশে সুতলী-কাবাবের ক্যাবারে বাদুড়ঝোলা ভেংচিতে উবেছিল চৌত্রিশতম টুকটুকির আঁচলে। দিনকাল টুপভূজঙ্গ ডেগচিতে টগবগ ফুটেছিল ছৈলছাবিলা ঝোলে। ততকাল উত্তেজিত বৃকোদরা লিঙ্গ-চেতনাবলীর উপ-ব্যক্তিগত নৃত্যনাট্য আড়াআড়ি ডিগবাজী খেতে থাকে ভ্রমার্থ-ভ্রামকের কৌটায়।

৮৩.

বারো মাসে একানব্বই পাবন কমই হয়ে যায়। ওয়াহিদুর রহমান ইউসুফজাই সাহেব সেরকম উবে যান একদিন কেটলীর ভুরভুরি ধোঁয়াতে। চুপসানো পুরীগুলি দাঁতে টেনে ছিঁড়ে খেয়ে ঝুপড়িসহ দোকানটাও অষ্টম ভাঁজে  গিলে ফেললাম স্বদেশী কারনে। ষাট না চল্লিশ মনে নাই।




Friday, December 31, 2010

প্রেতপদাবলী

উচ্চতানে
বিক্ষিপ্ত মন্বন্তরে
ভুট্টাভাজা মজাদুপুরের
বাঁজাকথাকলি
পবীত্র ধোঁয়াশায় অসরল প্রতিসরাঙ্ক
টায় টায় মিলিয়ে ঝিমিয়ে পড়েছিলো
অতিকায় চেলোজনিত কূটিল সরলতায়;
প্রায়
মৃতজনোচিত
ইত:স্তত
অতিকায় থেরিয়াম
সহাস্যে প্রপঞ্চান্তর হলে
অনির্ধারিত ঠিকুজি জুড়ে
বিযুক্তিবিস্মৃতনৃত্য
নিয়মিত পাতকের রক্তাভ পরিখায়
টিপ্পনিমূলক টিকা টুকে রাখে
মৃতচিকাদের
সুশীলস্বস্তিখেকো
মস্তিসম্ভবমজমাকারিকার ভুরভুরিতড়িকায় -

Friday, December 03, 2010

বারবিকিউ

একটি বারবিকিউ হবার কথা
প্রতিপাদ স্থানে
বেশ কয়েক দশক অথবা কয়েক বছর
অথবা মেরেকেটে এই কিছুদিন
তবে কাজটা পেণ্ডিং আছে এটা ঘটনা
আপাতত
রটনার কথা ভুলে
একটি সঠিক বারবিকিউ'র দিকেই মন দেওয়া যাক:
সবার আগে চাই আমিষ
তার সাথে এক্টুসখানি নিরামিষ
আর ঘড়াখানেক দুষ্টুপানি
যাতে পরিকল্পিত প্রতিবেশে
জাগামতো পাণিগ্রহণ
সসংশয় পজেশানে ইজি থাকতে পারে
আর লাড়তে পারে পরিস্থিতি মোতাবেক তাকে কিংবা কাকে
অর্থাৎ খণ্ড-ত'র তলায় কায়দা করে ঝাঁকাতেই বিজনেসক্লাস উড়ুক্কু কার্পেট
ভারিক্কি রাসপর্বের অনুপ্রাসে হাঁসফাঁস করে উঠবার তওফিক
তছরুফনিরপেক্ষ মকসুদসাহেবের মঞ্জিলের কার্ণিশে
তিল তিল
তেঁতে থাকে
আযাযিল বিভঙ্গ ভালো পেয়ে

Saturday, July 24, 2010

জেনেসিস ৭৬-৮০

৭৬.

সমার্থ সামর্থ্যটুকু রুকুতে জমানত রেখে খিয়ানতপ্রাজ্ঞ জুনিয়র যাজ্ঞবল্ক শল্কসুবাসমত্ত সোমত্থ ছাম্মাকছাল্লোকে মাল্যদান স্থগিত রাখে লোকায়ত সরাইখানার চিৎকাইৎ-বৈষম্য যুঝে

৭৭.

গণ্ডদেশ থেকে বগলের ভৌগোলিক এবং দার্শনিক দূরত্ব অসমান, সুতরাং কান টেনে খুলি এলেও মাথার আসা না আসা পৃথক প্রপঞ্চ; অসতর্ক চোথায় পার পেয়ে যাওয়া বৈঠকি ভোঁতা-রুস্তম হাঁউমাঁউ কেঁদে ওঠে হোলিকাউ ঝালভূনা চেখে চেখে

৭৮.

রৌদ্র ঝিলমিল কিলবিল দৃশ্যত: পরিচিত গুড়োপোকাদের উড়ু উড়ু বসন্তের পয়মন্ত মেলালিনঋদ্ধ ত্বকে; চোখের মা'কে খুব করে ভালোবাসি সবদিক ও.কে. দেখার তওফিক কেবলা জেনে

৭৯.

সকারনঋজুসমন্বিতা ফলত: অকারণ বৈধব্যের ডিগবাজীপ্রবণ ঘনজ্যামিতির প্রতীতি সসতর্ক পুঁতে রাখে যতিচিহ্নের কোয়ান্টাম মোচড়ে

৮০.

এইভাবে বিরতিহীন লাড়ালাড়ি প্রচলিত ডেকচিকে ব্রতচারী হেঁচকি ছাপিয়ে ননস্টিকি বাঁচিয়ে রাখে ফলিত ভৌত রসায়নজ্ঞাপক কোন ব্যাপক অভিসন্দর্ভের মুফতে পাওয়া রুদালি'র তান-বিস্তার-মীড়ে

Wednesday, March 24, 2010

কোপারে কবি কোপা!!!

ঠিক কাকে কবিতা বলে আর কাকে বলে ধুনফুন, এই ধাঁধা থেকে বের হতে গেলেই পরবর্তী ভুলভুলাইয়াতে ভুদাই হয়ে ঘুরি। বইতে যা লেখে সেগুলি মাথায় ঢোকে না। মাথায় যা ঢোকে তার অনেক কুকি আগে থেকেই ধূসরবস্তুতে গেঁথে ছিল। সুতরাং হালের কবিতাকলহ মগজে বলকে উঠে কান উপচে কাঁধে পড়তে আঁউ করে উঠি। শেষ পর্যন্ত কাব্যবীক্ষা ছাড়া সব কিছুই বুঝতে পাই একদেড় কেলাস...






ধরা যাক
পল্টি খেতেই
খাতা থেকে খেরোগুলি মুছে যাচ্ছে
পাঁঠাবলি'র মনোপলি
হেজিমনি ষাষ্টাঙ্গ বিস্মৃত হয়ে।

ক্ষয়ে যাচ্ছে তাজা লাকড়ি
ফুলদমে শিখণ্ডি কেরোসিনে
ভূতপূর্ব
মাগীবাজ
বর্ষীয়ান ষাঁড়
সন্মুখে ডাচ চারণভূমির মহিলা-গরু।

অত:পর
প্রপঞ্চগুচ্ছের প্যারাডাইম মান্দারগাছে উঠিলে
অন্দর কি বাত
প্যারালালবারের
ভার্চুয়াল পরিধি থেকে
আঁখ মারিতে থাকে অনিয়মিত বিরতিতে।

পৈতে প্যাচানো স্ট্রোক
তিনপুরুষ পিছিয়ে
খাস্তা নাচিয়ে ছিলো লাট্টু।

সুতরাং
বার দুটি'র
সামন্তরাল-ভেক রেখে দিতে
আড়াআড়ি
অধুনাহত তক্তা
কাড়াকাড়ি করে
ম্যাড়ম্যাড়ে বাস্তবে
কার্নিশ চড়ে
রসেবশে।